এক্সপ্রেস ইন্স্যুরেন্সের শেয়ার নিয়ে ভয়াবহ কারসাজি

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, অর্থসংবাদ.কম, ঢাকা প্রকাশ: ২০২২-০৬-১৬ ১৬:১৩:০৫, আপডেট: ২০২২-০৬-১৭ ০০:১১:৪০

পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত বিমা খাতের কোম্পানি এক্সপ্রেস ইন্স্যুরেন্স লভ্যাংশ ঘোষণার পরের দিনই ভয়াবহ শেয়ার কারসাজিতে লিপ্ত হয়েছে। আগের দিন সর্বশেষ ২৯ টাকা ৯০ পয়সায় লেনদেন হওয়া শেয়ার হঠাৎ করেই মাত্র ৩ টাকায় লেনদেন হতে দেখা গেছে। বর্তমান বাজার দরে ১ কোটি ৩৮ লাখ ৩৪ হাজার ৪৯৮ টাকার শেয়ার ফারইস্ট লাইফ মাত্র ১২ লাখ ৯২ হাজার ৯৪০ টাকায় বিক্রি করে। শেয়ার গুলো ফারইস্ট ইসলামী লাইফের নিজস্ব পোর্টফলিও থেকে ব্যক্তি পোর্টফলিওতে স্থানান্তর হয়েছে। শেয়ার ক্রয় দর ৩০ টাকার বেশি হলেও বিক্রি করেছে ৩ টাকা দরে। ফারইস্ট লাইফ সিকিউরিটিজ বিক্রি করে লংকাবাংলা সিকিউরিটিজের এক নারী গ্রাহকের কাছে।

জানা যায়, বিমা খাতের এই কোম্পানিটির শেয়ার কারসাজি করে বিপুল পরিমান শেয়ার লেনদেন করা হচ্ছে। এসময় কোম্পানিটির ৪ লক্ষ ৩০ হাজার ৯৮০টি শেয়ার ৩ টাকা দরে লেনদেন হয়েছে। লেনদেন শুরু হওয়ার মাত্র ৩৩ সেকেন্ডের মধ্যে অর্থাৎ ১০টা ৩৩ সেকেন্ডে এসব শেয়ার লেনদেন হয়েছে।

আরও জানা যায়, পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত বিমা খাতের আরেক কোম্পানি ফারইস্ট ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্সের কোড থেকে এসব শেয়ার লেনদেন হয়েছে। লংকাবংলা সিকিউরিটিজের একজন নারী গ্রাহক এসব শেয়ার ক্রয় করেন। এখন প্রশ্ন হলো এই বিপুল পরিমান শেয়ার এত কম দরে একটি কোম্পানির নিজস্ব পোর্টফলিও থেকে ব্যক্তির পোর্টফলিওতে গেলো কেন এবং কি উদ্দেশ্যে? ইতিহাসে এই ধরনের কারসাজি আর কখনও দেখা যায়নি।অর্থাৎ কোন ব্যক্তি বিশেষ সুবিধার জন্য উভয় পক্ষ পরিকল্পিতভাবে এই কারসাজি সংগঠিত করেছে বলে বিএসইসি সূত্রে জানা গেছে।

এবিষয়ে আরও জানা যায়, পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) বিষয়টি খতিয়ে দেখছে। শেয়ার কারসাজির বিষয়টি প্রমানিত হলে ব্যবস্থা গ্রহন করবে সংস্থাটি।

এ বিষয়ে বিএসইসির মুখপাত্র রেজাউল করিম অর্থসংবাদকে বলেন, বিষয়টি আমাদের নজরে এসেছে। এটি আমরা তদন্ত করে জড়িতদের আইনের আওতায় নিয়ে আসবো।

পুঁজিবাজার বিশ্লেষক অধ্যাপক আবু আহমেদ অর্থসংবাদকে বলেন, এই ধরনের শেয়ার লেনদেন নিষিদ্ধ। যারা এভাবে শেয়ার লেনদেন করেছে তাদের বিষয়ে তদন্ত করা উচিৎ। এছাড়া শেয়ার কারসাজির সাথে জড়িতদের আইনের আওতায় আনা উচিৎ। কোম্পানিটিতে ভয়াবহ কারসাজি হয়েছে।

এ বিষয়ে ডিএসইর প্রধান পরিচালন কর্মকর্তা অর্থসংবাদকে বলেন, আমরা বিষয়টি খতিয়ে দেখেছি। তবে এই লেনদেনটি বাতিল করা হবে। তদন্ত করে পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বাজার পর্যবেক্ষণে দেখা যায়, সপ্তাহের শেষ কার্যদিবস বৃহস্পতিবার (১৬ জুন) ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে সর্বোচ্চ ৩৩ টাকা ৫০ পয়সায় লেনদেন হয়েছে। এছাড়া সর্বোনিম্ন ৩ টাকা দরে লেনদেন হয়েছে।

লভ্যাংশ ঘোষণার পরের দিন শেয়ারের দর বৃদ্ধি বা কমার ক্ষেত্রে কোন সীমা থাকেনা। তবে কোম্পানিটির ভয়াবহ এই দরপতন ইতিহাসে এই প্রথম। আগের দিনে কোম্পানিটির শেয়ার সর্বশেষ লেনদেন হয়েছে ২৯ টাকা ৯০ পয়সায়। যা আজ মাত্র ৩ টাকায় বিপুল পরিমাণ শেয়ার লেনদেন হয়েছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে লংকাবাংলা সিকিউরিটিজের সিইও অর্থসংবাদকে বলেন, আমাদের একজন ক্লায়েন্ট অনলাইনে এ লেনদেন টি করেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ফারইস্ট লাইফ সিকিউরিটিজের সিইও নাজমুন মনির অর্থসংবাদকে বলেন, কিভাবে হলো আমি বলতে পারবো না।

এর আগের দিন ৩১ ডিসেম্বর, ২০২১ তারিখে সমাপ্ত হিসাববছরের জন্য লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে বিমা খাতের এই কোম্পানিটি। আলোচিত বছরের জন্য কোম্পানিটি শেয়ারহোল্ডারদের ১০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ ঘোষণা করে।

লভ্যাংশ ঘোষণার পরের দিনই কোম্পানিটির শেয়ারে এমন ভয়াবহ কারসাজি দেখা গেলো। যা দেশের পুঁজিবাজারে বিনিয়োগকারীদের জন্য খুবই হতাশার বলে মনে করছেন বাজার সংশ্লিষ্টরা।

৩১ মার্চ, ২০২১ তারিখে সমাপ্ত প্রথম প্রান্তিকে কোম্পানিটির ‌শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৬৫ পয়সা। গত বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি ৪৮ পয়সা আয় হয়েছিল।

আলোচিত প্রান্তিকে শেয়ার প্রতি ক্যাশ ফ্লো ছিল ১ টাকা ৩৯ পয়সা, যা আগের বছর একই সময়ে ৫২ পয়সা ছিল। অপরদিকে গত ৩১ মার্চ তারিখে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য ছিল ১৭ টাকা ৭৪ পয়সা।

বিমা খাতের এই কোম্পানিটি ২০২০ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হয়েছে। বর্তমানে কোম্পানিটি ‘বি’ ক্যাটাগরিতে লেনদেন করছে।

আমরা সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।