সেবা নিতে আমদানি-রপ্তানি অফিসে যেতে হবে না ব্যবসায়ীদের

নিউজ ডেস্ক, অর্থসংবাদ.কম, ঢাকা প্রকাশ: ২০২২-০৬-০৬ ২২:২৫:২১

দেশের ব্যবসা-বাণিজ্যের পরিধি দিন দিন বাড়ছে, এই গতিশীল অবস্থা ধরে রাখতে ব্যবসায়ীদের এখন থেকে আর লাইসেন্সিংসহ কোনো সেবা নিতে আমদানি ও রপ্তানি অফিসে যেতে হবে না বলে জানিয়েছেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি।

সোমবার (৬ জুন) ঢাকায় আমদানি ও রপ্তানি প্রধান নিয়ন্ত্রকের দপ্তর আয়োজিত ‘স্বাধীনতার ৫০ বছরে ৫০ ধরনের সেবা অনলাইনে’ শীর্ষক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

মানুষের প্রত্যাশা পূরণে সরকার কাজ করছে জানিয়ে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, ব্যবসায়ীদের জন্য ডিজিটাল সেবা নিশ্চিত করতে আমদানি ও রপ্তানি প্রধান নিয়ন্ত্রকের দপ্তর অনলাইন সিস্টেম ‘অনলাইন লাইসেন্সিং মোডুল’ কার্যক্রম শুরু করেছে। এ সেবা নিতে তৃতীয় কোনো পক্ষ বা ব্যক্তির সহযোগিতার প্রয়োজন হবে না।

ডিজিটাল বাংলাদেশ এখন আর স্বপ্ন নয়, বাস্তব উল্লেখ করে তিনি বলেন, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অধীন আমদানি ও রপ্তানি প্রধান নিয়ন্ত্রকের দপ্তর অনলাইনে শতভাগ সেবা দিচ্ছে। স্বাধীনতার ৫০ বছরে অনলাইনে ৫০ ধরনের সেবা বলা হলেও প্রকৃত পক্ষে এর সংখ্যা ৫২টি। ব্যবসায়ীরা এখন বাসায় বসে অনলাইনে এসব সেবা নিতে পারবেন। এ দপ্তরের কোনো সেবা নিতে আমদানি ও রপ্তানির অফিসে যেতে হবে না।

দিন দিন ব্যবসার পরিধি বাড়ছে উল্লেখ করে টিপু মুনশি বলেন, দেশের ব্যবসা-বাণিজ্য অতীতের যেকোনো সময়ের তুলনায় গতিশীল। ডিজিটাল অনলাইন সেবা দেশের ব্যবসা-বাণিজ্যের জন্য নিয়ামক শক্তি। বর্তমান সরকারের আন্তরিকতায় এ সেবা বাড়ানো সম্ভব হয়েছে, এটা সরকারের বড় সফলতা।

তিনি বলেন, দেশের মানুষ হয়রানি ছাড়াই সহজে বাণিজ্য সংক্রান্ত সেবা পেতে চায়। এজন্য ব্যবসায়ীদের সততা ও দক্ষতা সাথে মানুষকে সেবা দিয়ে যেতে হবে।

মন্ত্রী আরও বলেন, চলতি অর্থবছরে দেশের রপ্তানি আয়ের লক্ষ্যমাত্রা ৫১ বিলিয়ন মার্কিন ডলার নির্ধারণ করা হলেও প্রকৃত পক্ষে রপ্তানি ৬০ বিলিয়নের কম হবে না। এছাড়া, আগামী দুই বছরের মধ্যে এই রপ্তানি আয় ৮০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার ছাড়িয়ে যেতে পারে।

আমরা সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।