টি+১ সেটেলমেন্টের পরিকল্পনা জানতে চায় বিএসইসি

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, অর্থসংবাদ.কম, ঢাকা প্রকাশ: ২০২২-০৬-০৬ ১২:৩৮:২৭

পুঁজিবাজারের উন্নয়নে টি+১ (এ এবং বি ক্যাটাগরি) সেটেলমেন্ট চালু করার জন্য সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষের পরিকল্পনা জানতে চেয়েছে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। এক চিঠির মাধ্যমে আগামী ৭ দিনের মধ্যে এই পরিকল্পনা জানাতে বলা হয়েছে। বিএসইসি সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

জানা যায়, ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই), চট্রগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জ (সিএসই) এবং সেন্ট্রাল ডিপোজিটরি বাংলাদেশ লিমিটেডকে (সিডিবিএল) বৃহস্পতিবার (৫ জুন) বিএসইসি এবিষয়ে চিঠি দিয়েছে।

বিএসইসির সহকারি পরিচালক শেখ মো. লুৎফুল কবিরের স্বাক্ষরিত চিঠিতে বলা হয়, চিঠি ইস্যুর দিন থেকে পরবর্তী সাত দিনের মধ্যে পুঁজিবাজারে টি+১ বাস্তবায়নের জন্য সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষের প্রয়োজনীয় বিস্তারিত পরিকল্পনা ও পদক্ষেপ সম্পর্কে জানতে চাওয়া হয়েছে। টি+১ বাস্তবায়নে সেটেলমেন্ট সাইকেল, রুলশ ও রেগুলেশন সহ নির্দিষ্ট রোডম্যাপ জানাতে বলা হয়েছে।

এটি বাস্তবায়ন হলে জেড ক্যাটাগরি ব্যাতীত অন্য ক্যাটাগরির সিকিউরিটিজ ক্রয়ের পরের দিনই তা বিক্রি করতে পারবেন। বর্তমানে পুঁজিবাজারে টি+২ সেটেলমেন্ট চালু রয়েছে। এরফলে সিকিউরিটিজ ক্রয়ের ৩ কার্য দিবসে গিয়ে বিক্রি করা যায়। এই সময়ের ব্যবধান কমিয়ে বিনিয়োগ সহজলভ্য করার জন্য টি+১ সেটেলমেন্ট চালু করছে বর্তমান কমিশন।

এ বিষয়ে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) নির্বাহী পরিচালক ও মূখপাত্র মোহাম্মদ রেজাউল করিম অর্থসংবাদকে বলেন, কমিশন অনেকদিন ধরে টি+১ বাস্তবায়নের কথা চিন্তা করছে। এটি বাস্তবায়ন হলে পুঁজিবাজারে লেনদেন বাড়বে। এছাড়াও বিক্রয়যোগ্য শেয়ারের পরিমানও বৃদ্ধি পাবে। ফলে বাজারের লিকুইডিটি বাড়বে। তবে এতে একদিনে সেটেলমেন্ট বাস্তবায়নে কিছু ঝুঁকি রয়েছে। তাই এক্সচেঞ্জগুলো থেকে এবিষয়ে পরিকল্পনা জানতে চাওয়া হয়েছে। একইসঙ্গে ঝুঁকি কমিয়ে কিভাবে এটি বাস্তবায়ন করা যায়, কমিশন সে বিষয়ে চিন্তা করছে।

আমরা সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।