ছয় দফা দিবসের কর্মসূচিও হবে ডিজিটাল মাধ্যমে

নিজস্ব প্রতিবেদক প্রকাশ: ২০২০-০৫-১০ ১১:২০:২০

করোনাভাইরাস সংক্রমণ এড়াতে সমবেত না হয়ে তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহার করে আগামী ৭ জুন ঐতিহাসিক ছয় দফা দিবসের কর্মসূচি পালনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটির সদস্যরা।

কমিটির সভাপতি জাতীয় অধ্যাপক রফিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে ঐতিহাসিক ছয় দফা দিবস উদযাপনের প্রস্তুতি বিষয়ক এক বিশেষ সভা শনিবার বিকাল ৩টায় অনলাইনে অনুষ্ঠিত হয়েছে।

জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটির সদস্যরা অনলাইন অ্যাপ জুমের মাধ্যমে সভায় অংশগ্রহণ করেন। প্রধান সমন্বয়ক কামাল আবদুল নাসের চৌধুরীর স্বাগত বক্তব্যের মাধ্যমে সভার সূচনা করেন।

বাঙালির স্বাধীনতা আন্দোলনের নেতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবর্ষ উদযাপনে চলতি বছর ১৭ মার্চ থেকে এক বছর ‘মুজিববর্ষ’ ঘোষণা করা হয়েছে।

বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন ১৭ মার্চ বিভিন্ন দেশের সরকার ও রাষ্ট্রপ্রধানসহ অতিথিদের নিয়ে মুজিববর্ষের কর্মসূচির উদ্বোধন হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু বিশ্বজুড়ে নতুন করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে তা স্থগিত করা হয়।

পরে সীমিত পরিসরে মুজিববর্ষের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান হয়। বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবর্ষের অনুষ্ঠানের আয়োজন আগে থেকেই রেকর্ড করে ১৭ মার্চ রাত ৮টায় দেশের সব টিভি চ্যানেলে আনুষ্ঠানিকভাবে সম্প্রচার করা হয়।

কামাল চৌধুরী সে বিষয়টি উল্লেখ করে অনলাইন সভায় একইভাবে আগামী ৭ই জুন ঐতিহাসিক ছয় দফা দিবস উদযাপনের প্রস্তাব করেন।

বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটির সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, “করোনাভাইরাসজনিত বর্তমান পরিস্থিতিতে জনস্বাস্থ্যের বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে ডিজিটাল পদ্ধতিতে ঐতিহাসিক ছয় দফা দিবস উদযাপনে বাস্তবায়নযোগ্য কর্মসূচি গ্রহণের বিষয়ে উপস্থিত সবাই মতামত প্রদান করেন।

“পরে সভাপতির বক্তব্যে কমিটির সভাপতি জাতীয় অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম পরবর্তীতে অনুষ্ঠিত অনলাইন সভায় সদস্যদের সাথে আলোচনার মাধ্যমে কর্মসূচি চূড়ান্ত করা হবে বলে জানান।”

সভায় উপস্থিত ছিলেন তথ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ হাছান মাহমুদ, শিক্ষামন্ত্রী দীপু মণি, সাবেক সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর, সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক, শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী, প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব ড. আহমদ কায়কাউস, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেমোরিয়াল ট্রাস্টের সদস্য সচিব শেখ হাফিজুর রহমান, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সচিব (সমন্বয় ও সংস্কার) মো. কামাল হোসেন, বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির মহাপরিচালক লিয়াকত আলী লাকী, চিত্রশিল্পী হাশেম খান, বাংলা একাডেমির সাবেক মহাপরিচালক শামসুজ্জামান খান, আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া, কবি তারিক সুজাত এবং বাস্তবায়ন কমিটির উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

এর আগে গত ২৫ এপ্রিল বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটির প্রধান সমন্বয়ক কামাল আবদুল নাসের চৌধুরী ইঙ্গিত দিয়েছিলেন, করোনাভাইরাসজনিত বর্তমান পরিস্থিতি দীর্ঘায়িত হলে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীর আয়োজন ডিজিটাল মাধ্যমে বাস্তবায়ন করা হবে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আমরা সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।